ঢাকা, ২১শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৬ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

চাঁদপুরে পরিত্যক্ত ইটভাটাকে সবুজে রুপান্তর কৃষি উদ্যোক্তা সাংবাদিক হেলাল উদ্দিন

২৪ ঘন্টা খবর বিডি

স্টাফ রিপোর্টার


প্রকাশিত: ১০:৩৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১০, ২০২০
শেয়ার করুনঃ

চাঁদপুর জেলার সদর উপজেলার মৈশাদী ইউনিয়নের শাহতলী গ্রামের একটি পরিত্যক্ত ইটভাটার বিশাল আয়তনের নির্জীব বালুময় স্থানকে সবুজের সমারোহতে পরিনত করেছেন একজন কৃষি উদ্যোক্তা সাংবাদিক হেলাল উদ্দিন। পেশায় তিনি ছিলেন একজন সাংবাদিক ( দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার ইকোনমিক এবং অনলাইন এডিটর)। শখের বশে পৈত্রিক এই অনাবাদী ভূমিতে সম্পূর্ণ অর্গানিক পদ্ধতিতে পৃথিবীর বিভিন্ন জাতের ফলের চারা/বীজ সংগ্রহপূর্বক আবাদ শুরু করেন। নাম রাখেন ” ফ্রুট ভ্যালী এগ্রো প্রকল্প “।অল্পদিনেই আসতে শুরু করে সাফল্য।

কি নেই এই এগ্রো ভ্যালীতে! রকমেলন, মাস্ক মেলন, হানিডিউ মেলন, আইস বক্স ইয়েলো, হানিডিউ সিডলেস,পৃথিবীর বিখ্যাত জাতের বিভিন্ন আম, সাদা জাম, জাপানি জাম্বুরা, ক্যাপসিকাম, স্ট্রবেরী, ড্রাগন, চেরি টমেটো, ব্রোকুলি, বারোমাসি মাল্টা, পারসিমন ইত্যাদি শত রকমের ফল। ইতোমধ্যেই রকমেলন, আইস বক্স ইয়েলো ও হানিডিউ ফল পরিপূর্ণ হয়ে হারভেষ্ট হতে চলেছে। পুরো প্রকল্পের সব ফল গাছ পরিপূর্ণ হলে এটি হতে পারে একটি দর্শনীয় প্রকল্প।

গত ৮ ডিসেম্বর মঙ্গলবার জেলা প্রশাসক মহোদয়ের আগ্রহে এই প্রকল্প ভিজিট করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান এবং জেলা প্রশাসকের পক্ষে কিছু ফল কিনতে গিয়ে হয়ে গেলাম এই ফ্রুট ভ্যালীর প্রথম ক্রেতা। আর সাথে বোনাস হিসেবে হেলাল সাহেব উপস্থিত আমাদের সবাইকে তাৎক্ষণিক গাছ থেকে পেরে নিজ হাতে কেটে এই ফলগুলোর স্বাদ আস্বাদনের সুযোগ করে দেন।

এই ফলগুলোর দাম তিনি নির্ধারণ করেছেন যে কোন সুপারশপের দামের অর্ধেক। এই দাম সবার জন্য প্রযোজ্য। আর সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে এইগুলো আমদানি করা নয়, আমার দেশে উৎপাদিত ও সম্পূর্ণ অর্গানিক পদ্ধদিতে চাষকৃত।

অদম্য ইচ্ছাশক্তি, ধৈর্য ,পরিশ্রম ও সৃজনশীলতা থাকলে যে কোন কাজে সফল হওয়া যায় হেলাল উদ্দিন সাহেব তা আবারও প্রমাণ করলেন। অত্যন্ত বিনয়ী, সদালাপী,মার্জিত ও রুচিশীল এই মানুষটির এই সফলতা হতে পারে চাঁদপুরের হাজারো তরুণের উদ্যোক্তা হবার পথে আদর্শ।